সেন্টমার্টিনে মালয়েশিয়াগামী রোহিঙ্গাবাহী একটি ট্রলারডুবি; ১৪ রোহিঙ্গার মরদেহ উদ্ধার

কক্সবাজারের সেন্টমার্টিনের কাছে বঙ্গোপসাগরে মালয়েশিয়াগামী রোহিঙ্গাবাহী একটি ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার ভোরে সাগরে ভাসমান অবস্থায় নারী ও শিশুসহ ১৪ রোহিঙ্গার মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া জীবিত উদ্ধার করা হয় আরও ৭০ জনকে।

নৌবাহিনর কর্মকর্তারা জানান, ভোরে ৮০ জনের মতো রোহিঙ্গাকে নিয়ে বোটটি মালয়েশিয়ার দিকে যাত্রা করে। কিন্তু সকাল ৮টার দিকে সেন্টমাটিন ক্রস করে ছেঁড়াদ্বীপের কাছে গিয়ে বোটটি ডুবে যায়। সকাল সোয়া ৮টায় নৌ বাহিনী জাহাজ ট্রলারডুবির খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। সাড়ে ৮টার মধ্যে তারা উদ্ধার কাজ শুরু করেন। প্রথমে তারা ভাসমান অবস্থায় ৪০ জনকে উদ্ধার করে তাদের জাহাজে তুলে নেন। এরপর পাওয়া যায় ১০ জনের মৃতদেহ। পরবর্তীতে আরো ৩০ জনকে জীবিত এবং ৪ জনের মৃতদেহ পাওয়া যায় সাগরে।

মঙ্গলবার সকালে সেন্টমার্টিন দ্বীপের অদূরে ১০ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিম সাগরে এ ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটে বলে জানান কোস্টগার্ডের সেন্টমার্টিন স্টেশনের ইনচার্জ লেফটেন্যান্ট কমান্ডার নাঈম-উল হক। তবে নিহতদের নাম ও পরিচয় তাৎক্ষণিক নিশ্চিত করতে পারেনি কোস্টগার্ডের সংশ্লিষ্টরা।

লেফটেন্যান্ট কমান্ডার নাঈম-উল হক বলেন, মঙ্গলবার সকালে সেন্টমার্টিনের অদূরবর্তী সাগরে রোহিঙ্গা বোঝাই একটি ট্রলার ডুবির ঘটনা স্থানীয় জেলেদের কাছ থেকে জানার পর কোস্টগার্ড ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। পরে সেখান থেকে নারী ও শিশুসহ ১৪ জনের মৃতদেহ এবং ৭০ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়। ঘটনাস্থলে কোস্টগার্ডের পাশাপাশি নৌ-বাহিনীর একটি জাহাজ উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে। দুর্ঘটনা কবলিত ট্রলারটিতে আরো লোকজন রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

পাঠকের মতামত

আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

আমাদের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ