শ্লীলতাহানির বিচার চেয়ে রাবি প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচি 

রাবি প্রতিনিধি :

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনায় অভিযুক্তের দ্রুত বিচার দাবিতে আন্দোলন করেছে শিক্ষার্থীরা। গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতে প্রাধ্যক্ষ বিথীকা বণিকের বাসায় এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ পাওয়া যায়। এ সময় শিক্ষার্থীরা হল প্রাধ্যক্ষের দ্রুত পদত্যাগ দাবি করেন। বৃহস্পতিবার দুপুর দুইটা পর্যন্ত তাদের আন্দোলন চলে।

এই ঘটনায় গতকাল বুধবার প্রাধ্যক্ষ বিথীকা বণিকের অভিযুক্ত ভাই শ্যামল বণিককে গ্রেপ্তার করেছে মতিহার থানা পুলিশ। তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তার বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের কয়েক’শ শিক্ষার্থী কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে জড়ো হন। সেখান থেকে তারা বঙ্গমাতা হলের সামনে গিয়ে অভিযুক্তের বিচার দাবি, হল প্রাধ্যক্ষের পদত্যাগসহ কয়েক দফা দাবি সহ ‘জোহা স্যারের পাঠশালায়,ধর্ষকের ঠাই নাই , ‘ধর্ষকের বিরুদ্ধে,ডাইরেক্ট এ্যাকশন ‘ধর্ষকের ঠাই নাই, এই বাংলায়” এসব স্লোগান দিতে থাকেন।

কিছুক্ষণ পর শিক্ষার্থীরা বঙ্গমাতা হল থেকে প্রশাসন ভবনের সামনে অবস্থান নেন। এসময় ইংরেজি বিভাগের চেয়ারম্যান এসে আন্দোলনের সাথে একাত্বতা ঘোষণা করেন। সেখানে তারা প্রশাসন ভবনের সামনে বিভিন্ন দাবিতে স্লোগান দিতে থাকেন। শিক্ষার্থীরা একইসঙ্গে দ্রুত হল প্রাধ্যক্ষের পদত্যাগ দাবি করেন।

একপর্যায়ে প্রক্টর এসে আন্দোলনকরীদের শান্ত করার চেষ্টা করেন এবং তাদের দাবী আমলে নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন কিন্তু শিক্ষার্থীরা তা না মেনে, উল্টো বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনকে ২ঘন্টার আল্টিমেটাম দেন যে বিথিকা বণিক ম্যামকে হলের প্রাধ্যক্ষ থেকে অব্যাহতি দিতে হবে এবং কোন তালবাহানা না করে দ্রুত বিচার করতে হবে।

পাঠকের মতামত

আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

আমাদের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ