মাদারীপুর হাট বাজারে উপচে পড়া ভীড়; মানছেনা স্বাস্থ্যবিধি 

জাহিদ হাসান,মাদারীপুর:

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে দীর্ঘদিন পর লকডাউন শিথিল করায় মাদারীপুরের হাট-বাজারে ঈদের কেনাকাটা শুরু হয়েছে। দোকানগুলোতে উপচে পড়া ভীড় দেখা গেছে। স্বাস্থ্যবিধি মানছে কেউ। মাদারীপুরে স্বাস্থ্য বিধি না মেনেই সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত কেনাকাটায় ব্যস্ত হয়ে উঠেছেন ক্রেতা-বিক্রেতারা। মাদারীপুর জেলা লকডাউন ঘোষনা করায় দোকান পাট বন্ধ থাকার দীর্ঘদিন পর ১০ মে জেলার হাটবাজার ও বিপনী বিতানগুলোতে ঈদের কেনা কাটা শুরু হয়েছে।

মাদারীপুর সদরের পুরান বাজারের দোকানগুলোতে উপচে পড়া ভীড় দেখা গেছে। অনেক দোকানে হাত ধোয়ার ব্যাবস্থা থাকলেও তা মানছেনা কেউ। আবার অধিকাংশ দোকানে জীবানুনাশক কোন স্প্রে করা হচ্ছেনা। এদিকে ব্যাংক খোলা থাকায় সেখানেও ভীড় জমাচ্ছে গ্রাহকরা। সরেজমিনে দেখা গেছে, ঈদকে সামনে রেখে কেনাবেচা জমে উঠছে মাদারীপুরের মার্কেট ও বিপনীবিতানগুলোতে। বাহারি রঙের দেশী-বিদেশী পোশাক সাজিয়ে বসেছেন দোকানীরা। আর সব শ্রেণীর মানুষ ছুটছেন ঈদের পোশাক কেনার জন্য। অনেকে আবার শিশু-কিশোরসহ পরিবারের সবার সাথে বেড়িয়েছেন কেনাকাটা করতে।

কোন রকম স্বাস্থ্য বিধি না মেনেই কেনাকাটা করছেন ক্রেতা-বিক্রেতারা। মাস্ক বা গ্লভস ব্যবহার তো দুরের কথা মানা হচ্ছে না সামাজিক দূরত্ব। একে অপরের সাথে গা ঘেঁষে ঘুরছেন মার্কেটগুলোতে। এতে করোনা ঝুঁকি বাড়লেও সচেতন নন কেউ। তবে ক্রেতাদের অভিযোগ দোকানগুলোতে করোনা প্রতিরোধে রাখা হয়নি কোন কার্যকর ব্যবস্থা। বিক্রেতাদের দাবী নিয়ম মানছেন না ক্রেতারা। নাম না প্রকাশে এক দোকানদার জানান, ক্রেতাদের চাপ বেশি থাকার কারণে কেউই নিয়ম মানছে না। ফলে এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হচ্ছে।
মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুল ইসলাম জানান, নিয়ম না মেনে ব্যবসা পরিচালনা করলে তাদের বিরুদ্ধ ব্যবস্থা নেয়া হবে। জনগনকেও সচেতন হতে হবে।

 

পাঠকের মতামত

আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

আমাদের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ