মাদারীপুরে জমিজমার বি‌রো‌ধে অন্তঃসত্ত্বা মহিলাসহ ২ জন‌কে কু‌পি‌য়ে জখম

জাহিদ হাসান, মাদারীপুর : 
জ‌মিজমা নি‌য়ে বি‌রো‌ধের জে‌রে মাদারীপুর সদর উপ‌জেলার কু‌নিয়া ইউ‌নিয়‌নের ত্রিভাগদী গ্রামে ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা মহিলাসহ দুজনকে কু‌পি‌য়ে মারাত্মক জখম ক‌রে‌ছে প্র‌তিপক্ষরা। আহতদের মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভ‌র্তি করা হ‌য়ে‌ছে।
ভুক্তভোগী প‌রিবার সূ‌ত্রে জানা যায়, শুক্রবার সন্ধ্যায় ত্রিভাগদী এলাকার মাসুদ কাজী (৫২) একই এলাকায় তার বোনের বাড়ি গিয়ে আকরাম বেপারির (৪০) সাথে জমি প‌রিমাপের বিষয় আলাপ করে। এক পর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হলে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে উভয় পক্ষই সংঘর্ষে জড়ি‌য়ে পড়ে। এতে মাসুদ কাজী ও তার অন্তঃসত্ত্বা ভাগ‌নি মিতু আক্তার (২৪) রামদার কো‌পে মারাত্মক আহত হয়। প‌রে স্বজনরা তাদের উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।
আহত মাসুদ কাজী বলেন, ‘আমাদের সবার বাড়িই পাশাপাশি ও আত্মীয় হই। সন্ধ্যার দিকে আমি আমার বোনের বাড়ি গিয়ে আকরাম বেপারিকে ডেকে জমি মাপের কথা বলি। এতে আকরাম ক্ষিপ্ত হয়ে খুব গালাগালি করে। গালাগালি শুনে আশপাশের আত্নীয় স্বজনরা ছুটে আসে। ঝগড়াঝাটির মধ্যেই আকরাম ও তার  অন্য ভাইরা মিলে ঘর থেকে রামদা এনে আমাদের উপর আক্রমণ করে হাতে পায়ে কোপ দেয়। এ‌তে আমার ছয় মাসের  অন্তঃসত্বা ভাগনিও সেখানে উপস্থিত ছিলো তার পেটে রামদার বাট দিয়ে আঘাত করে।’
ত‌বে অভিযো‌গের বিষয়ে আকরাম বেপারি বলেন, ‘মাসুদ কাজি তার বোনের বাড়ি এসে জমিজমার বিষয় নিয়ে আমাকে গালাগালি করে, পরে আমিও গালাগালি করেছি। সে রামদা নিয়ে এসেছে আমিও রামদা নিয়ে এসেছি। অন্তঃসত্ত্বা কোন মহিলাকে আমি আঘাত করিনি। বৃষ্টির কারণে সে পড়ে যেতে পারে।’
এব্যাপা‌রে মিতু আক্তারের বাবা লতিফ হাওলাদার বলেন, ‘আমার অন্তঃসত্ত্বা মেয়েকে ওরা পেটের উপর রামদার বাট দিয়ে আঘাত করেছে। ওদের বিচার চাই।
মাদারীপুর সদর হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. রিয়াদ মাহমুদ বলেন, ‘দু’জনেই চিকিৎসাধীন আছে। তবে অন্তঃসত্বা মিতু আক্তারের কথা পরিক্ষা নিরীক্ষা ছাড়া এখনোই কিছু বলতে পারবো না।’
সদর থানার এসআই খোসরুজ্জামান বলেন’ ‘অভিযোগ পেয়ে আমরা সদর হাসপাতালে এসেছি, তদন্ত করে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

পাঠকের মতামত

আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

আমাদের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ