মাদারীপুরে কওমি মাদ্রাসার ২য় শ্রেনীর ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ, আটক ১

মাদারীপুরজেলা প্রতিনিধি, জাহিদ হাসান

মাদারীপুর সদর উপজেলার গাজবাড়ীয়া কওমি মাদ্রাসার ২য় শ্রেনীর ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে একই মাদ্রাসার শিক্ষকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মাদ্রাসার এক শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার বিকেলে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ, হাসপাতাল ও পরিবার সুত্রে জানা যায়, মাদারীপুর সদর উপজেলার কেন্দুয়া ইউনিয়নের ছিরিনদী বাজিদপুর গ্রামের আনোয়ার মাতুব্বরের ছেলে আসিব মাতুব্বর (১২) মস্তফাপুর ইউনিয়নের গাজবাড়ীয়া কওমি মাদ্রাসায় ২য় শ্রেণীর শিক্ষার্থী।  রোববার মাদ্রাসার ইউসুফ আলী নামের এক শিক্ষক আসিবকে জোড়া বেত দিয়ে বেধর মারপিট করলে আসিব ভয়ে বাড়িতে চলে যায়। পরে আসিবকে তার পরিবার বুঝিয়ে মঙ্গলবার পুনরায় মাদ্রাসায় দিয়ে যায়। বুধবার বিকেলে মাদ্রাসা থেকে ফোন দিয়ে আসিবের পরিবারকে বলে, আসিব অসুস্থ ওকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। তবে হাসপাতালে বিষপানের কথা বলে আসিবকে ভর্তি করানো হলে কিছুক্ষন পরে সে মারা যায়। এ ঘটনায় পুলিশ আবুল বাসার নামের এক শিক্ষককে হাসপাতাল থেকে আটক করে।

নিহত আসিবের মা কান্না জরিত কন্ঠে বলেন, আমার ছেলেকে ইউসুফ হুজুর আরও তিনদিন আগে জোড়া বেত দিয়ে খুব পিটিয়েছে এবং আজ মেরেছে। আমি হাসপাতালে এসে আমার সোনামানিককে জিবিত দেখতে পারলাম না। ওকে হুজুররা মেরে ফেলেছে। আমি ওদের ফাসিঁ চাই।

মাদারীপুর সদর হাসপাতেল জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত ডাঃ অখিল সরকার জানান, বিষপানের ঘটনা বলে আসিব নামের এক ছেলেকে ভর্তি করানো হয়। কিছুক্ষন পরে সেই ছেলে মারা যায়।

মাদারীপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) সওগাতুল আলম বলেন, এ ঘটনায় খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একজনকে থানায় আনা হয়েছে। তবে অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পাঠকের মতামত

আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

আমাদের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ