নতুন ওসি যোগদান: দৌলতখানে একমাসইে পাল্টে গেল অপরাধ জগতের চিত্র

ভোলা প্রতিনিধি :

দৌলতখান থানায় নতুন ওসি বজলার রহমানের যোগদানের পর থেকেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যাপক উন্নতি বৃদ্ধি পেয়েছে । বর্তমানে দৌলতখান থানায় আইনগত বিষয় নিয়ে এসে অনেকেই সমাধাণ পেয়ে সন্তুুষ্ট;এলাকার পাড়া মহল্লায় দৌলতখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি বজলার রহমানের প্রশংসা ছড়িয়ে বেড়াচ্ছেন । মাত্র এক মাস এসেই তিনি দৌলতখানের মাদক স গ্রেফতার করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন । দৌলতখান থানায় যোগদানের পরেই নিজের বুদ্ধিমত্তা আর অক্লান্ত পরিশ্রমে প্রায় মাদকমুক্ত ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির যথেষ্ট উন্নতি লাভ করে।সমপ্রতি নানা কারনে বেশ আলোচিত ও সব শ্রেণীর মানুষের কাছে প্রশংসিত হয়ে সুনাম-সুখ্যাতিও কুড়িয়েছেন তিনি, । দৌলতখানে সর্বত্র বাসা বাড়ী ও হাট-বাজারে চুরি-ডাকাতি এবং কিশোর-যুবকদের বিভিন্ন অপরাধ মূলক কর্মকান্ড বন্ধ করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি প্রতিনিয়ত।সব মিলিয়ে ওসি বজলার রহমান বেশ কিছু সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত এখন প্রায় মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত দৌলতখানকে রুপান্তরিত হওয়ার সন্নিকটে। যোগদানের শুরু থেকেই মাদক ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে তার জেহাদ চলছে। অতিতের যে কোন সময়ের তুলনায় বর্তমানে দৌলতখান থানার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অনেকটা শান্ত।জানা গেছে, দৌলতখান থানায় যোগদানের পর থেকে তার চৌকস অফিসারদের নিয়ে রাত দিন কঠোর পরিশ্রম করে,নিজের সাহসী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন । যার ফলে স্থানীয় থানা ও পুলিশ বিভাগের প্রতি জনগনের স্বস্তি ও বিশ্বাসের জায়গা সৃষ্টি হয়েছে। ।খোঁজখবর নিয়ে জানা গেছে,ওসি বজলার রহমান এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করে চলেছেন। তিনি এ থানার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে যাচ্ছেন।এ কারণে ক্রমশ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি ঘটছে বলে জনগনের দাবী দৌলতখানকে মাদক মুক্ত করার প্রত্যয়ে পুলিশ নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। মাদকের সাথে জড়িতদের সমাজ থেকে নির্মুল করা হবে। মাদকের ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্স দেখানো হবে উলে­খ করে তিনি বলেন, মাদকের সাথে জড়িত কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। ছাড় পাবে না সন্ত্রাসীরাও। সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে পুলিশি অভিযান অব্যাহত থাকবে। তিনি অপরাধ দমনে পুলিশকে সহযোগিতা করার জন্য সবার প্রতি আহবান জানান। এই বিষয় অফিসার ইন-চার্জ বজলার রহমান জানান আমি দৌলতখান ১ মাস হয়েছে এসেছি ইতিমধ্যে কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে দৌলতখানে যারা বিশৃঙ্খল সৃষ্টি করবে তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে । এ ছাড়া মেঘনায় মা ইলিশের রক্ষায় আমি নিজেই মেঘনায় অভিযান পরিচালনা করেছি বিগত দিন থেকে এই বছরে জেলেরা মেঘনায় ইলিশ শিকারে না গিয়ে জাল নৌকা মেরামতে ব্যস্ত ছিলেন আমি তাদেরকে একান্ত ভাবে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এ ছাড়া দৌলতখানের স্কুল কলেজ মাদ্রাসায় দৌলতখানের হাট বাজারের বিভিন্ন স্থানে মাদকের কুপল নিয়ে কমিউনিটি পুলিশিং সভা করে যাচ্ছেন

 

পাঠকের মতামত

আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

আমাদের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ