“তারুণ্যের ছোঁয়ায় পরিবর্তন সোসাইটি” কুষ্টিয়া সেন্ট্রালের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি : 

“প্লান্ট এ ট্রি, সেভ দ্যা বাংলাদেশ” স্লোগান কে সামনে রেখে সেচ্ছায় রক্তদান, হতদরিদ্র শিশুদের মাঝে শিক্ষা ও নৈতিকতা ,বৃক্ষরোপণ, শিক্ষা উপকরণ বস্ত্র ও খাবার বিতরণ ,বাল্য বিবাহ প্রতিরোধসহ সামাজিক উন্নয়নে নানান ধরনের কাজ নিয়মিত করে যাচ্ছে সেচ্ছাসেবী সংগঠন “তারুণ্যের ছোঁয়ায় পরিবর্তন সোসাইটি”  এর সদস্যরা ।

তারুণ্যের ছোঁয়ায় পরিবর্তন সোসাইটির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বুধবার কুষ্টিয়া সদর ভূমি অফিসের সামনে তারুণ্যের ছোঁয়ায় পরিবর্তন সোসাইটি কুষ্টিয়া সেন্ট্রালের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।

কর্মসূচিতে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব কেপিসি ও সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কবি রাশেদুল ইসলাম বিপ্লব, দৈনিক সময়ের দিগন্ত পত্রিকার সম্পাদক নাহিদ হাসান তিতাস, মানুষ মানুষের জন্য, কুষ্টিয়ার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক শাহাবউদ্দিন মিলন।

এসময় বক্তারা বলেন, প্রকৃতির শোভা বর্ধনেই নয় – গাছ আমাদের পরিবেশ, জীববৈচিত্য এবং মানুষের জীবন বাঁচাতে সহায়তা করে। গাছ থেকে যে পরিমাণ অক্সিজেন আমরা গ্রহণ করি ঠিক সেই পরিমাণ মানুষের শরীর থেকে বের হওয়া কার্বন-ডাই-অক্সাইড শুষে নেয় গাছ। বিশেষজ্ঞদের মতে, আমাদের দেশের আয়তন ও জনসংখ্যানুপাতে ২৫ ভাগ বনভূমি থাকা প্রয়োজন কিন্তু বাস্তবে রয়েছে ৮-১০ ভাগ বনভূমি। মানুষের প্রয়োজনে গাছের কথা বলে শেষ করা যাবে না। অক্সিজেন তৈরি এবং কার্বন-ডাই-অক্সাইড গ্রহণ ছাড়াও বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ যেমন বন্যা, খরা, ঝড়, জলোচ্ছ্বাস ইত্যাদি থেকে আমাদের রক্ষা করে।

বিভিন্ন প্রজাতির ফুলগাছ প্রকৃতিকে নয়নাভিরাম দৃশ্যে পরিণত করে। তাই আমরা সকলে একটু সচেতনভাবে তাকালে দেখা যাবে দেশের বড় বড় শহর ছাড়াও গ্রামীণ জনপদগুলোতে অপরিকল্পিতভাবে বিদেশি গাছ রোপণের হিড়িক পড়ে গেছে। মেহগনি, একাশিয়া, বটলপাম, উইলো, রেইনট্রি, ইউক্যালিপটাস প্রভৃতি বিদেশি গাছ দ্রুত বেড়ে ওঠা দেখে মানুষ এগুলোর প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠছে। কিন্তু এসব বিদেশি গাছের ভিড়ে আমাদের ঐতিহ্যের ধারক বাহক দেশি আম, জাম, কাঁঠাল, লিচু গাছ হারিয়ে যেতে বসেছে। এতে শুধু দেশি ফলদ গাছই হারাচ্ছে তা নয়, পরিবেশ প্রকৃতির ওপর পড়ছে বিরূপ প্রভাব।

দেশের জীববৈচিত্রের জন্যও দেখা দিচ্ছে মারাত্মক হুমকি। মানব দেহের জন্যও বিদেশি গাছ ক্ষতিকর বলে মনে করছেন প্রাণীবিদ ও বন্যপ্রাণী বিশেষজ্ঞরা।
তাঁরা বলছেন, ব্যাপক হারে বিদেশি গাছ লাগানোর ফলে একদিকে দেশি পাখি এবং অন্যান্য প্রাণীর খাদ্যসংস্থান কমে যাচ্ছে, অন্যদিকে মানব স্বাস্থ্যের জন্য সেগুলো ক্ষতিকর বিষাক্ত পদার্থ ছড়াচ্ছে। তাছাড়া এসব বিদেশি গাছ প্রচুর ভূগর্ভস্থ পানি শোষণ করে পানির স্তর আরও নিচে নামিয়ে দিচ্ছে।
প্রকৃতি বাঁচলে মানুষ বাঁচবে। তাই প্রকৃতি রক্ষায় আমাদের সকলকে নিজ নিজ স্থান থেকে দেশীয় গাছ রোপণ করতে হবে। কারণ দেশ আমাদের, তা গড়তেও হবে আমাদেরই। এসমং আরো উপস্থিত ছিলেন- বিপ্লব খন্দকার, আরিফ হোসেন, কাজী সাইফুল,মোস্তাফিজুর রহমান ভুবন , আশিকুর রহমান আবির ,আকাশ আহম্মেদ, সুমনসহ তারুণ্যের ছোঁয়ায় পরিবর্তন সোসাইটি কুষ্টিয়া সেন্ট্রালের সদস্যরা। বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির সার্বিক পরিচালনা করেন তারুণ্যের ছোঁয়ায় পরিবর্তন সোসাইটি কুষ্টিয়া সেন্ট্রালের আহবায়ক নাব্বির আল নাফিজ।

পাঠকের মতামত

আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

আমাদের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ