টুঙ্গিপাড়ায় হাতুরে ডাক্তারের বিরুদ্ধে ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ

টুঙ্গিপাড়া (গোপালগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় হাতুরে ডাক্তার শেখর কুমার পোদ্দারের বিরুদ্ধে ১৩ বছরের এক মাদ্রাসা ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার পাটগাতী বাজারে ঐ হাতুরে ডাক্তারের চেম্বারে এঘটনা ঘটে। হাতুড়ে ডাক্তার শেখরের বাড়ি পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলায়।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকালে শ্লীলতাহানির শিকার ঐ ছাত্রী তার মায়ের সাথে হাতুড়ে ডাক্তার শেখরের চেম্বারে আসে। এরপর চিকিৎসার জন্য পর্দার পিছে ঐ ছাত্রীকে নিয়ে যায় শেখর। তখন ছাত্রীর মা চেম্বারের বাইরে গেলে সেই সুযোগে হাতুড়ে ডাক্তার শেখর তার গায়ে হাত দেয়। তখন ঐ ছাত্রী চিৎকার দিয়ে বাইরে বের হয়ে আসে ও তার মাকে কাঁদতে কাঁদতে শ্লীলতাহানির ঘটনা জানায়। এরপর হাতুড়ে ডাক্তার শেখর তাদের কাছে হাতজোড় করে ক্ষমা চায়। তখন ছাত্রীর মা এলাকাবাসীদের জানালে তারা ডাক্তারের উপর চড়াও হয়। তখন স্থানীয় মুরব্বীরা কথিত ডাক্তার শেখরকে চেম্বার থেকে চলে যেতে বলে।
এদিকে শ্লীলতাহানির খবর পেয়ে সাংবাদিকরা সেখানে ছুটে যান।

তবে ছাত্রীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ অস্বীকার করেছেন হাতুড়ে ডাক্তার শেখর পোদ্দার। তখন সাংবাদিকরা তার ফার্মাসিস্ট, বি.এম.ডি.সি, আর.এম.পি সার্টিফিকেট দেখাতে বললে তিনি কোন সার্টিফিকেট দেখাতে পারনি। তখন বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী তাকে চেম্বারে আসতে নিষেধ করে এবং বাজার থেকে চলে যেতে বলেন।

টুঙ্গিপাড়া থানার এস.আই আমিরুল ইসলাম জানান, এঘটনা তিনি শুনেছেন। তবে কেউ থানায় অভিযোগ দায়ের করেনি।

পাঠকের মতামত

আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

আমাদের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ