টুঙ্গিপাড়ায় চেয়ারম্যান ও পুলিশের হস্তক্ষেপে মেয়ে ফিরে পেলো পরিবার

রকিবুল ইসলাম, টুঙ্গিপাড়া:

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান ও পুলিশের হস্তক্ষেপে একটি অসহায় মেয়ে ফিরে পেল স্বামীর পরিবার। আজ মঙ্গলবার দুপুরে বর্নি ইউপি চেয়ারম্যান ও বিট পুলিশের দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত এস আই জাকির হোসেন, এএস আই বরেন্দ্র চন্দ্র বর্মন সোনিয়া বেগম (২২) নামের মেয়েটিকে তার স্বামীর পরিবার ফিরিয়ে দেয়। ঘটনাটি টুঙ্গিপাড়া উপজেলার বর্ণি ইউনিয়নের বাশুড়িয়া গ্রামের।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ২০১৬ সালে উপজেলার বর্ণি ইউনিয়নের বাশুড়িয়া গ্রামের মুন্নু মোল্লার ছেলে আলিম মোল্লা (২৮) এর সাথে গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার রঘুনাথপুর ইউনিয়নের পারকুশলী গ্রামের নাকির মোল্লার কন্যা সোনিয়া বেগম (২২) পালিয়ে বিয়ে করে।
পরিবারের অমতে বিয়ে করায় আলিমের বাবা-মা তাদের সম্পর্ক মেনে নেয়না। তখন আলিম ও সোনিয়া বিভিন্ন জায়গায় বাসা ভাড়া থেকে দাম্পত্য জীবন কাটায়। বিয়ের এক বছর পর মেয়ে ও ছেলে পক্ষের গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে মেয়েটি শ্বশুর বাড়িতে ওঠে। তখন সে একটি কন্যা সন্তানের জননী।

সোনিয়ার বাবা-মা জানায়, সোনিয়ার শ্বশুর- শ্বাশুড়ি তাকে নানান বাহানায় বেশি কথা বলে ও মারপিট করে। তাই প্রতিনিয়ত শ্বশুর বাড়ির লোকের অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে সোনিয়া বাবার বাড়িতে চলে আসে এবং তার প্রতি অত্যাচারের কথা বাবা-মাকে জানায়। তখন তার বাবা-মা আলিমের বাড়িতে আসলে তাদের ও মারপিট করে। তখন সোনিয়ার মায়ের হাত ভেঙে যায়। এরপর আমরা দিশেহারা হয়ে বর্ণি ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শফিকুল ইসলাম (বাদশা),র কাছে গিয়ে মেয়েকে অত্যাচারের ঘটনাটি জানাই। তখন চেয়ারম্যান বর্নি,র বিট পুলিশের কাছে অভিযোগ দিতে বলেন। এরপর ঐ ছেলের পরিবারকে বিট পুলিশের কার্যালয়ে আসার জন্য নোটিশ প্রদান করা হয়। পরে আলিমের বাবা-মা ইউনিয়ন পরিষদে আসলে উভয় পক্ষের মধ্যে মিমাংসা ও মেয়েটিকে অত্যাচার না করার জন্য বিশেষ ভাবে সতর্ক করা হয়।
এসময় বর্নি ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম বাদশা, এস আই জাকির হোসেন, এএস আই বরেন্দ্র চন্দ্র বর্মন ও আতিকুর রহমান জুয়েল উপস্থিত ছিলেন।

বর্নি ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শফিকুল ইসলাম (বাদশা) বলেন, সোনিয়ার পরিবারের অভিযোগ শুনে পুলিশের সহযোগিতায় মেয়েটিকে তার স্বামীর ঘরে ফিরিয়ে দিয়েছি এবং ছেলের পরিবারকে মেয়েটিকে অত্যাচার না করার জন্য বিশেষভাবে সতর্ক করেছি। এছাড়া যে কোন সুবিধা অসুবিধার কথা আমাকে জানাতে বলেছি।

পাঠকের মতামত

আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

আমাদের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ