গাজীপুরের কালিয়াকৈরে মাছ ধরার উৎসবে মেতে উঠেছে মৎস্য শিকারিরা।

খোরশেদ আলম,কালিয়াকৈর(গাজীপুর)প্রতিনিধিঃ
শীতের ঘন কোয়াশায় ঠান্ডায় যখন প্রকৃতি কাবু তখন মাছ ধরার উৎসবে মেতে উঠছে কয়েক হাজার মাছ শিকারিরা। কিছুতেই থামাতে পারেনি মাছ ধরা উৎসব। এ উৎসবে যেন আপন মনের ডাকেই সারা দিয়ে খাল বিলে জড়ো হয় মাছ ধরা শিকারিরা। একটা মাছ ধরা মানে পরিবারের কাছে নিজেকে অনেক গৌরব অর্জন করা। আবার কেউ বিলের ঘোলা পানিতে মাছ ধরতে ব্যর্থ হলে যেন মাছ ধরা উৎসবই ম্লান হয়ে যায়। কেউ মাছ ধরতে পারে আর কেউ পারে না। এতে কারো কোন কমতি নেই। মাছ ধরা উৎসবে যোগ দেওয়াটাই মুল উদ্যেশ হয়ে যায়।
প্রতি বছরই শুকনা মৌসুমে শীতের সকালে প্রতি সাপ্তাহে শনিবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত প্রচন্ড শীতে ঠক ঠক করলেও যেন মাছ ধরা উৎসবে মাছ ধরতেই হবে।
গাজীপুরের কালিয়াকৈরে খালে-বিলে পলো, চাবি জাল দিয়ে মাছ ধরার উৎসবে মেতে উঠেছে স্থানীয় মৎস্য শিকারিরা। সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের বাসিন্দারা পলো নিয়ে মাছ ধরার উৎসবে শামিল হন। এরই ধরা বাহিকতায় গত শনিবার সকালে উপজেলার বড়ইবাড়ি গ্রামের পশ্চিমবাইদ বিলে মাছ ধরার উৎসবে মেতে উঠে মৎস্য শিকারিরা। ধরা পড়ছে বিভিন্ন প্রজাতির দেশীয় মাছ।
এলাকাবাসী ও মৎস্য শিকারিরা জানায়, প্রতি বছরের মতো এবারও নির্ধারিত দিনে শত শত মৎস্য শিকারি তাদের পলো, চাবি জাল, দড়িসহ মাছ ধরার বিভিন্ন উপকরণ নিয়ে দলবেঁধে খালে হাজির হন।
এ উৎসবে শিকারিদের অনেকেই বোয়াল, মিনার কাপ, শোলসহ দেশীয় প্রজাতির বিভিন্ন প্রজাতির মাছ শিকার করতে সক্ষম হয়
এ উৎসবে পলো ছাড়াও ফার জাল, ছিটকি জাল, ঝাঁকি জালসহ বিভিন্ন উপকরণ দিয়ে মাছ ধরেন অনেকে। এরই ধারাবাহিতকায় শনিবার সকালে উপজেলার বড়ইবাড়ি এলাকার পশ্চিম বাইদ একটি ঐতিহ্যবাহী বিলে নামেন মৎস্য শিকারীরা। সকালে ওই বিলের তলায় জমে থাকা পানি সেচে মাছ ধরার চেষ্টা চালাচ্ছিলেন মৎস খামারীরা ও তাদের লোকজন।
এরই মধ্যে উপজেলার আষাড়িয়াবাড়ি, কুন্দাঘাটা, ডাকুরাইল, ঢোলসমুদ্র, মজুদপাড়া, বড়ইবাড়ি, কুটামনি, মেদীআশুলাই,কাঞ্চনপুরসহ বিভিন্ন এলাকার এক থেকে দেড় হাজার মৎস্য শিকারী ওই বিলে হাজির হন।
কিন্তু মৎস্য শিকারীরা হৈ হুল্লোড় করে কৃষকের বাধা পেরিয়ে ধান ক্ষেত্র নষ্ট করেই ওই বিলের হাঁটু পানিতে নেমে পড়েন। ধান ক্ষেত নষ্ট হওয়া যেন কৃষকের শুধু চেচামেচি আর তাকিয়ে থাকা ছাড়া আর কিছু করার নেই। মৎস্য শিকারীরা হৈ হুল্লোড় করে ধরেন বিভিন্ন প্রজাতির দেশীয় মাছ।
কালিয়াকৈর উপজেলা সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ সলিমুল্লাহ জানান, মাছ ধরার উৎসব গ্রাম-গঞ্জের চিরচেনা মুখ। কিন্তু কল-কারখানার বর্জ্যে কারণে মিঠা পানিতে মাছ চাষ করতে সমস্যা হচ্ছে।

পাঠকের মতামত

আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

আমাদের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ