কুষ্টিয়ায় ফুটন্ত গরম পানি নিক্ষেপ করে শিশুর দেহ ঝলসানো মামলায় এক মহিলার ১৪ বছর কারাদন্ড

নাব্বির আল নাফিস (কুষ্টিয়া প্রতিনিধি):

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় ফুটন্ত গরম পানি নিক্ষেপ করে শিশুর দেহ ঝলসানো মামলায় বালা খাতুন(৬০) নামের এক মহিলার ১৪ বছর কারাদন্ড ও ৫০হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দিয়েছেন আদালত।

৪ সেপ্টেম্বর বুধবার বেলা সাড়ে ১২টার সময় কুষ্টিয়া নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালতের বিচারক মুন্সি মো: মশিয়ার রহমান আসামীর উপস্থিতিতে এই রায় দেন। সাজাপ্রাপ্ত বালা খাতুন ভেড়ামারা উপজেলার রামকৃষ্ণপুর গ্রামের মৃত জবান কারিগরের স্ত্রী ।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ১৪অক্টোবর বিকেলে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মামলার বাদি ভেড়ামার উপজেলার রামকৃষ্ণপুর গ্রামের মো: শামীম হোসেনের নাতনী রাফিয়া খাতুন (৯) প্রতিবেশী আসামী বালা খাতুনের শিশু নাতি লিখনের সাথে বাড়ির উঠানে খেলা করা সময় মারামারি করে। এতে ক্ষুব্ধ বালা খাতুন চুলার উপর থেকে ফুটন্ত গরম পানি নিক্ষেপ করে শিশু রফিয়ার গায়ে। এতে শিশু রাফিয়ার দেহ ঝলসে যায়।

এঘটনায় ভেড়ামারা থানায় দায়ের করা মামলাটি তদন্ত শেষে আসামী বালা খাতুনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন দ:বি: ২০০০ এর ৪(২) (খ) ধারায় অভিযোগ এসে আদালতে চার্জশীট দাখিল করে পুলিশ। বিজ্ঞ আদালত মামলাটির চার্জ গঠনান্তে স্বাক্ষ্য শুনানী শেষে আসামীর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় বালা খাতুন নামের বৃদ্ধার চৌদ্দ বছর সশ্রম কারাদন্ডসহ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদন্ডাদেশ দেন আদালত।

পাঠকের মতামত

আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

আমাদের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ