ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে পিঠা উৎসব

রাকিব হোসেন, ক্যাম্পাস প্রতিনিধি:

সংগঠনকে বেগমান করতে ঋতুরাজ বসন্তে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে পিঠা উৎসব আয়োজন করে সেচ্ছাসেবী ক্যান্সার সচেতনতা বিষয়ক সংগঠন ক্যাপ।

বৃহস্পতিবার (২০ ফেব্রুয়ারী) সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জিমনেসিয়ামের সামনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে এ সংগঠনটি।

বাঙালির হাজার বছরের ঐতিহ্যের সাথে মিশে আছে নিজস্ব খাদ্যাভ্যাস । যার মধ্য একটি পিঠা-পুলি। এ পিঠা উৎসবে তাদের স্টলে বিভিন্ন ধরনের বাহারি রঙের পিঠা দেখা যায়। গ্রাম-বাংলার বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী পিঠার আয়োজন করে। এর মধ্যে ভাজাপুলি, বাধাকপির পাকড়া, ঝাল ভাজাপুলি, ফুল পিঠা, শঙ্খ পিঠা, ক্যাপ স্পেশাল, পাটিসাপটা, জামাই পিঠা, ফুলকপির বড়া, সুজির বরফি, গাজরের বরফি অন্যতম।

ক্যাপের সভাপতি রিয়াদুস সালেহীন জানান, ক্যাপের সদস্যদের মধ্যে আন্তঃযোগাযোগ, সম্পর্ক উন্নয়ন, ক্যাপের ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা নির্ধারনের জন্য আমরা কিছু অনুষ্ঠান করে থাকি। যার অংশ হিসেবে আজকে আমাদের এ পিঠা উৎসবের আয়োজন। আশা করি প্রতিবছর এটি অনুষ্ঠিত হবে।

এসময় ক্যান্সার সচেতনতা বিষয়ক সংগঠন ক্যাপের সভাপতি রিয়াদুস সালেহীন ও সাধারণ সম্পাদক তাজমীন সুলতানা মিমির তত্ত্বাবধনে পিঠা উৎসেব উপস্থিত ছিলেন, ক্যাপের সাবেক সভাপতি সালমান শাহাদাত, সাধারণ সম্পাদক মীরা শেখ, কোষাধ্যক্ষ সায়েম মির্জা, সাংগাঠনিক সম্পাদক রাকিবুল ইসলামসহ অন্যান্য সদস্যরা।

উল্লেখ্য, ‘যদি ক্ষতির কারণ লজ্জা হয়, তাহলে আর লজ্জা নয়’ এ স্লোগানকে সামনে রেখে ২০১৫ সালে ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ে যাত্রা শুরু করে ক্যান্সার অ্যাওয়ারনেস প্রোগ্রাম ফর ওমেন (ক্যাপ)। সংগঠনটির প্রধান কার্যক্রম স্তন ও জরায়ু ক্যান্সার সম্পর্কে সবাইকে সচেতন করা।

 

পাঠকের মতামত

আরো খবর

ফেসবুকে আমরা

আমাদের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ